Tuesday, October 4, 2022
Homeরাজ্যকোচবিহারDinhata: TMC win,BJP-CPM boycott দিনহাটায় তৃণমূলের বোর্ড গঠন বিনা প্রতিদ্বন্দিতায়, বিজেপি-...

Dinhata: TMC win,BJP-CPM boycott দিনহাটায় তৃণমূলের বোর্ড গঠন বিনা প্রতিদ্বন্দিতায়, বিজেপি- সিপিএম প্রার্থী প্রত্যাহার

Dinhata: TMC win,BJP-CPM boycott  দিনহাটায় তৃণমূলের বোর্ড গঠন বিনা প্রতিদ্বন্দিতায়

অমিত সরকার, ইন্ডিয়া নিউজ বাংলা, কোচবিহার: শেষমেষ ১৩টি ওয়ার্ডে তৃণমূল কংগ্রেস বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করলো দিনহাটা পৌরসভায়। দিনহাটা পুরসভায় মোট ১৬টি ওয়ার্ড রয়েছে । যার মধ্যে ১৩টি ওয়ার্ডে তৃণমূল কংগ্রেস জয়লাভ করেছে । তবে ৬, ৮ এবং ১০ এই তিনটি বাদ দিয়ে বাকি ১৩টি ওয়ার্ডে জয়ী তৃণমূল কংগ্রেস। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জেতার খুশিতে বাজি ফাটিয়ে ও সবুজ আবির খেলে কর্মী ও সদস্যরা উল্লাস করেন।

বিকেলের দিকে বিজেপি সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দেয় বাকি তিনটি ওয়ার্ড থেকে তাদের প্রার্থী প্রত্যাহার করা হচ্ছে ।

এর আগে, গতকালই দিনহাটা পৌরসভার ৭টি ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস । এরপরই আজ ইতিমধ্যেই আরও পাঁচটি ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করল তৃণমূল কংগ্রেস। সব মিলিয়ে সর্বমোট দিনহাটা পৌরসভার ১৬ টির মধ্যে ১২ টি ওয়ার্ডে তৃণমূল কংগ্রেস বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করায় দিনহাটা পৌরসভা তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে চলে যায়। যদিও বিরোধীদের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে সন্ত্রাসের কারণেই তারা মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেনি।

দিনহাটায় তৃণমূলের বোর্ড গঠন বিনা প্রতিদ্বন্দিতায়, বিজেপি- সিপিএম প্রার্থী প্রত্যাহার

গতকাল দিনভর উত্তপ্ত ছিল দিনহাটা মহকুমা শাসক দপ্তর চত্বর এলাকায় । যদিও বিরোধীদের সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন দিনহাটা বিধায়ক তথা তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা চেয়ারম্যান উদয়ন গুহ। এ বিষয়ে বিজেপি কোচবিহার জেলার জেলা সভাপতি সুকুমার রায় জানান দিনহাটায় কোনো গণতন্ত্র নেই। দিনহাটায় কোন ইলেকশন হবেনা সেটা বিজেপি আগের থেকেই জেনে গিয়েছিল, কেননা দিনহাটায় ইলেকশন হতে দেবে না তৃণমূল কংগ্রেস। মানুষের অগ্রাধিকার ভোটাধিকার সেটাই প্রয়োগ করতে দেওয়া হবে না দিনহাটায়। আর সেই কারণে প্রার্থীরা যদি রাজি না থাকে, উপজাতিদের জোরপূর্বক ভাবে তুলে নিয়ে গিয়ে উইথড্রো করানো হচ্ছে। ইতিমধ্যেই তাদের ধমকানো চমকানো শুরু করেছে কোথাও কোথাও আবার বাড়িঘর ভাঙচুর শুরু করেছে বলে বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়। মূলত নির্বাচন কমিশনারের বক্তব্য পদার্থের নাম ও বাড়ির ঠিকানা বের করে তাদের বাড়ি থেকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে এসে নমিনেশনই দাঁড় করানো হচ্ছে। দিনহাটায় উদয়ন গুহ যা বলবে তাই হবে। ওইখানে মানুষ ভোট দিতে পারবে না দোকানপাট বন্ধ, রাস্তাঘাট বন্ধ ও বাড়িঘরে চড়াও হচ্ছে। বাড়িঘর ভেঙ্গে দেওয়ার কথা বলা হচ্ছে। মূলত এলাকায় থাকতে গেলে তাদেরকে ভোট দিতে হবে বা তাদের সাথে থাকতে হবে, না হলে ব্যবসা করতে দেবেনা বলে বিজেপির পক্ষ থেকে এই অভিযোগ তোলা হয়েছে।  আগামী দিনে এই নির্বাচন নিয়ে কতটা কিভাবে কাজ করা যায় বা কি করা যাবে সেই সব বিষয় নিয়ে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে বলে জানান। ইতিমধ্যে তারা নির্বাচন কমিশনারসহ তাদের দলের উচ্চতর নেতৃত্বকে জানিয়েছেন। শুধু কলকাতা না দিল্লিতেও তারা এই ঘটনার বিবরণ দিয়েছেন। সব বিষয় নিয়ে তারা আলোচনা করবেন বলে  জেলা সভাপতি সুকুমার রায় জানান। এ বিষয়ে কোচবিহার জেলার সহ-সভাপতি আব্দুল জলিল আহমেদ জানান বিজেপির কোন লোকজন নেই তাই তারা জোরপূর্বক কাউকে দাঁড় করিয়েছিলেন। তারা আজ বুঝতে পেরেছেন যে তৃণমূল সরকারের উন্নয়নমূলক কাজ কর্ম হয়েছে সেদিকে নজর করে তারা আজ শহীদ হয়েছে তাদের নমিনেশন উইড্রো করে নিচ্ছেন। দিনহাটায় ষোলটির মধ্যেই বারোটি মতন আসনের সম্ভাব্য ছিল। কিন্তু যা পরিস্থিতি দেখা যাচ্ছে তাতে ১৬টি তেই তৃণমূল বোর্ড গঠন করবে। বামফ্রন্ট বুঝতে পেরেছে তাই তারা নিজেদের নমিনেশন প্রত্যাহার করে নিয়েছে।  তৃণমূল উন্নয়নমূলক কাজকর্ম করেছে, উন্নয়ন হয়েছে দিনহাটাতে, তাই তারা বুঝে এই নমিনেশন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। একটাই বার্তা বিজেপি একটি সাম্প্রদায়িক দল, তাই বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।

দিনহাটা পৌর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াল সিপিএম

দিনহাটা পৌর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াল সিপিএম। বৃহস্পতিবার দিনহাটা সিপিএম কার্যালয় সাংবাদিক সম্মেলন করে বিষয়টি জানিয়ে দেন তারা । দিনহাটার মানুষকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান । অভিযোগ, গত 7 তারিখে 4টি ওয়ার্ডে মনোয়নপত্র জমা করেছিলে। সেগুলো এফিডেভিট গুলো বাকি ছিল । 17 অভিযোগ গতকাল তারা সেগুলো দিতে গেলেও তারা দিতে পারেনি । সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করে দিনহাটা রেখেছে তৃণমূল । এই অবস্থায় বাকি ওয়ার্ডগুলোতে তারা যেভাবে মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেনি ঠিক তেমনি তারা তাদের যে এফিডেভিটের কাগজগুলো বাকি ছিল সেগুলো তারা দিতে পারেনি । দিনহাটায় কোনরকম নির্বাচনের পরিবেশ নেই যার ফলে তারা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন । দিনহাটায় মোট ১৬টি ওয়ার্ড রয়েছে। গতকালই সাতটি ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস।  যদিও এ বিষয় নিয়ে বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক তথা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ারম্যান উদয়ন গুহ বলেন ফরওয়ার্ড ব্লক এবং সি পি আই এম এর গোষ্ঠী কোন্দল এর পরেই তারা মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেনি । দিনহাটায় কোনো রকম কোনো সন্ত্রাস নেই ।

Screenshot 20220210 195329 Gallery

সিপিএম প্রার্থীর পোস্টার ছেড়ার অভিযোগ তৃণমূলের দিকে

অন্যদিকে তুফানগঞ্জ পৌরসভার অন্তর্গত ৮নাম্বার ওয়ার্ডের, সিপিএম প্রার্থী বুবাই ব্রমর পোস্টার রাতের অন্ধকারে ছিঁড়ে রাস্তায় ফেলে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুধ্যে। যদিও তৃণমূল এর পক্ষ থেকে সমস্ত অভিযোগ ভিক্তিহীন বলে দাবি করেন।

Dinhata: TMC win,BJP-CPM boycott

বিজেপির প্রার্থী প্রত্যাহার

বিকেলের দিকে ঘটনাপ্রবাহ দেখে দিনহাটা পৌর নির্বাচনে থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্য বিজেপি ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছে । এ বিষয় নিয়ে বিজেপি পার্টি অফিসে সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপি জেলা নেতৃত্ব ।ইতিমধ্যে ১৩টি ওয়ার্ডে তৃনমূল কংগ্রেস বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছে। বাকি 3টি ওয়ার্ডে নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও বিজেপি সেখানে থেকে সরে আসায় আর নির্বাচন সম্ভাবনা থাকছে না দিনহাটা । সাংবাদিক সম্মেলন করে বিজেপি জেলা সভাপতি সুকুমার রায় জানিয়ে দিলেন দিনহাটা পৌরসভা নির্বাচন সরে দাড়ানোর কথা ঘোষনা করে দিলেন । ১০৮টি পৌরসভা নির্বাচনে সাথে সাথে কোচবিহারের পৌরসভা নির্বাচন রয়েছে সেখানে দিনহাটায় বিজেপি প্রার্থীদের লিস্ট তৈরি হয়েছিল ১৬ টি ওয়ার্ডে কিন্তু সেখানে আরটিভিতে নমিনেশন দিতে পেরেছিল বিজেপির পক্ষ থেকে। ৮ ও ৯ ফেব্রুয়ারি নমিনেশন জমা দেওয়ার তারিখ, ৮ তারিখে বিজেপির পক্ষ থেকে আটটি আসনে নমিনেশন জমা দেওয়া হলেও পরের দিন নমিনেশন জমা দিতে গেলে তাদের কাগজপত্র কেড়ে দিয়ে তাদের কি নমিনেশন জমা দিতে দেওয়া হয়নি।   তৃণমূলের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ। বিজেপির পক্ষ থেকে যেটা অভিযোগ করা হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস জোরপূর্বক সন্ত্রাস করে ও ভয় দেখিয়ে প্রার্থী ও তাদের বাড়ির লোক সহ ভয় দেখিয়ে প্রস্তাবক দের তুলে নিয়ে এসে নমিনেশন উইড্র করা হয়। তৃণমূলের এই সন্ত্রাসের কারণে বাকি যে যে কটি ওয়ার্ডের প্রার্থী দেওয়া আছে সেগুলি তুলে দিবেন এবং তার সাথে সাথে ভোট বয়কট ডাক দিয়েছে বিজিবির পক্ষ থেকে। পুরোটাই উদয়ন গুহর নেতৃত্বে জোরপূর্বক ভাবে করা হয়েছে, কেননা তিনি জেনে গিয়েছিলেন যে শান্তি ও সুষ্ঠুভাবে গণতন্ত্রিক মাধ্যমে যদি ভোট প্রক্রিয়া হয় তাহলে বিজেপি জিতে যাবে, সেই ভয়েই তৃণমূল এভাবে সন্ত্রাস করে দিনহাটা পৌরসভা জয় করেছে। গণতন্ত্রকে উলঙ্গ করে এইভাবে ভোট প্রক্রিয়া করা যায় না সে কারণে বিজেপি বাকি প্রার্থীদের নমিনেশন তুলে নিয়ে ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছে।

Published by Samyajit Ghosh

RELATED ARTICLES
Html code here! Replace this with any non empty raw html code and that's it

Most Popular