Sunday, February 5, 2023
Homeরাজ্যদক্ষিণ ২৪ পরগণাJaynagar-Majilpur Municipality জয়নগর-মজিলপুর পুরসভা কি এবার ধরে রাখতে পারবে কংগ্রেস?

Jaynagar-Majilpur Municipality জয়নগর-মজিলপুর পুরসভা কি এবার ধরে রাখতে পারবে কংগ্রেস?

শম্ভুনাথ মণ্ডল, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, ইন্ডিয়া নিউজ বাংলা : Jaynagar-Majilpur Municipality প্রাচীন ও বর্ধিষ্ণু শহর জয়নগর। তবে যানজট থেকে শুরু করে পানীয় জল ও নিকাশির যথেষ্ট সমস্যা রয়েছে এই শহরাঞ্চলে। দেড়শো বছরের বেশি বয়স হয়েছে জয়নগর-মজিলপুর পুরসভার। এই দীর্ঘ সময়কাল ধরে কংগ্রেসই মূলত পুরসভাকে নিজেদের দখলে রেখেছিল। মাঝে একবার তৃণমূল কংগ্রেস পুরসভার দখল নিলেও গতবার ফের কংগ্রেস এই পুরসভার দখল নেয়। গত কংগ্রেস বোর্ডের আমলে পার্ক থেকে শুরু করে পানীয় জলের রিজার্ভার, ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে রাস্তা সংস্কার, নিকাশিনালা তৈরি-সহ বহু কাজ হলেও এখনও জয়নগর-মজিলপুর পুরসভার মূল সমস্যা যানজট ও নিকাশি। যার ফলে এলাকার সাধারণ মানুষ যথেষ্ট কষ্টে রয়েছেন।

১৪টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত জয়নগর-মজিলপুর পুরসভা। এবার ১৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে মাত্র ৯টি ওয়ার্ডেই প্রার্থী দিয়েছে কংগ্রেস। তবে বাকি পাঁচটি ওয়ার্ডে কংগ্রেস সমর্থিত নির্দল প্রার্থী রয়েছে। অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেস ১৪টি ওয়ার্ডেই প্রার্থী দিয়েছে। বিজেপি ১৩টি ওয়ার্ডে ও সিপিএম একটি ওয়ার্ডে প্রার্থী দিয়েছে। গতবার ১৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৬টি ছিল কংগ্রেসের দখলে। তৃণমূল জিতেছিল ৪টি ওয়ার্ডে। অন্যদিকে সিপিএম ১টা, এসইউসিআই ২টো ও নির্দল প্রার্থী ১টি ওয়ার্ডে জয়লাভ করে। নির্দল ও এসইউসিআইকে সাথে নিয়ে বোর্ড গঠন করে কংগ্রেস। তবে পুরসভার শাসনকাল শেষ হতেই সরকার নির্ধারিত পুরপ্রশাসক বসানো হয় এখানে। সেখানে অবশ্য তৃণমূলের লোকজনকেই জয়নগর-মজিলপুর পুরসভার দায়িত্ব দেওয়া হয়।

১৫২ বছরের পুরসভাকে পুনুরুদ্ধার করতে কোমর বেঁধে লড়াইয়ের ময়দানে তৃণমূল Jaynagar-Majilpur Municipality

রাজ্যের সর্বত্র পুরসভাগুলি তৃণমূলের দখলে গেলেও এই পুরসভায় কংগ্রেস নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রেখেছিল। ফলে এই ১৫২ বছরের পুরসভাকে পুনুরুদ্ধার করতে কোমর বেঁধে লড়াইয়ের ময়দানে নেমে পড়েছে তৃণমূল। ইতিমধ্যেই দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ১৪ জন বিধায়ক এই পুরসভার ১৪টি ওয়ার্ডে প্রার্থীদের হয়ে প্রচার শুরু করেছেন। যে কোনও মূল্যে এই পুরসভাকে নিজেদের দখলে নিতে ক্যানিং পূর্বের বিধায়ক তথা দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার তৃণমূলের পুর নির্বাচনের পর্যবেক্ষক সওকাত মোল্লা, সুন্দরবন সাংগঠনিক জেলা তৃণমূলের সভাপতি যোগরঞ্জন হালদারের নেতৃত্বে জোর কদমে প্রচার চলছে। থেমে নেই জয়নগর বিধানসভার বিধায়ক বিশ্বনাথ দাসও। তিনিও প্রতিদিন দলীয় প্রার্থীদের সাথে নিয়ে প্রচার করছেন।

শেষ হাসি কে হাসবে নির্ধারিত হবে ২৭ ফেব্রুয়ারি Jaynagar-Majilpur Municipality

তৃণমূল জোর কদমে প্রচার করলে এখনও সেভাবে প্রচারে নামেননি কংগ্রেস, বিজেপি বা অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলি। রাস্তার মোড়ে মোড়ে, ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ছোট ছোট পথসভা ছাড়া সেভাবে প্রচারে ঝড় তুলতে দেখা যায়নি তাদের। অন্যদিকে তৃণমূলের তরফে ইতিমধ্যেই ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে প্রচার, জনসভা করতে দেখা গিয়েছে। তৃণমূলের সাথে লড়াই করতে পাঁচটি ওয়ার্ডে বিক্ষুব্ধ তৃণমূল প্রার্থী ও সিপিএমকে সমর্থন করেছে কংগ্রেস। তাই সেই ওয়ার্ডগুলিতে প্রার্থী না দিয়ে বাকি নটি ওয়ার্ডে প্রার্থী দিয়েছে তাঁরা।   অনেক হিসেব নিকেশ চলছে। চলছে জোর জল্পনা। তবে শেষ হাসি কে হাসবে জয়নগর-মজিলপুর পুরসভায় তা নির্ধারিত হবে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি জনতার রায়ে।

Jaynagar-Majilpur Municipality

আরও পড়ুন : Special Campaign of TMC শান্তিপুরে রূপশ্রী আর লক্ষ্মী ভাণ্ডার নিয়ে অভিনব প্রচারে মডেল মমতা

———–
Published by Subhasish Mandal  

RELATED ARTICLES
Html code here! Replace this with any non empty raw html code and that's it

Most Popular